ডিসেম্বর ১, ২০২০

করোনাভাইরাস নিয়ে ভাইরাল হওয়া ভুল তথ্য প্রতিরোধের উপায়

করোনাভাইরাসের চেয়েও দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে এ নিয়ে নানা অপপ্রচার ও ভুল তথ্য। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করোনাভাইরাস নিয়ে ভিডিওসহ নানা তথ্য মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যাচ্ছে, যার বেশিরভাগই বিভ্রান্তিকর। আতঙ্ক সৃষ্টিকারী এসব তথ্যের অধিকাংশই গুজব বা ভুয়া।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধের সরাসরি কোনো উপায় না থাকলেও এ নিয়ে ছড়ানো ভুয়া খবর বা গুজব থেকে বাঁচানোর উপায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন আইটি বিশেষজ্ঞরা। আর এই কাজটি আপনার নিজের পক্ষেই সম্ভব।

গতকাল ২৭ মার্চ বিবিসি অনলাইনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব ভুয়া তথ্য এবং গুজব থেকে নিজেকে দূরে রাখার কিছু উপায় তুলে ধরা হয়েছে। সেখান থেকে কিছু উপায় বাংলাদেশ রিপোর্টের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

১. নতুন কোনো তথ্য পাওয়ার সাথে সাথেই অন্যকে জানাবেন না। অপেক্ষা করুন এবং যুক্তি নির্ভর চিন্তা করুন। কারণ তথ্যটি হতে পারে গুজব কিংবা মিথ্যা।

২. কেউ বার্তা পাঠালে তার সোর্স নিশ্চিত হয়ে নিন। যিনি পাঠিয়েছেন তাকে কিছু প্রশ্ন করুন, জানতে চান, এই তথ্য তিনি কোথায় পেয়েছেন। যদি তার বন্ধুর বন্ধু বা চাচীর সহকর্মীর প্রতিবেশির মাধ্যমে পেয়েছেন বলে জানান- তাহলে এই বার্তা যথাযথ কর্তৃপক্ষের নয়।

৩. প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যমের সংবাদ পরিবেশনার ধরনের সাথে মিল না পেলে সতর্ক হোন। কারণ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যমের নাম ব্যবহার করে প্রচুর ভুয়া পেইজ ও অ্যাকাউন্টের অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

৪. বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোনো তথ্য শেয়ার করার আগে সেটা সম্পর্কে সন্দেহ করুন। যাচােই করার চেষ্টা করুন। সত্যতা যাচাই না করতে পারলে আপনার সামনে আসা তথ্যটি শেয়ার করবেন না।

৫. সঠিক পরামর্শের সাথে ভুল পরামর্শ মেশানো তথ্যও ছড়িয়ে পড়ছে ইন্টারনেটে। নিজের কাছে গ্রহণযোগ্য হলেই সেটাকে অন্যকে জানাবেন না। অন্যকে জানানোর আগে একটু যাচাই বাছাই করে জেনে নিন।

৬. আতঙ্ক, রাগ, উদ্বিগ্নতা কিংবা অতি আনন্দ মাখা পোস্ট খুব দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়। এই ধরনের আবেগমূলক পোস্ট এড়িয়ে চলুন। কারণ এসব আবেগমাখা পোস্টগুলো ভুল বার্তা ছড়ানোর অন্যতম একটি বড় উৎস।

৭. অনেক তথ্য রয়েছে যেগুলো পক্ষপাতমূলক। এসব তথ্য থেকেও সাবধান। আপনার কাছে বিষয়টি সঠিক মনে হলেও বড় কোনো সমস্যার কারণ হতে পারে এসব তথ্য।

করোনাভাইরাস থেকে নিজেকে, নিজের পরিবার এবং দেশকে বাঁচাতে ভুল তথ্য শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন। স্বাস্থ্যগত বিষয়গুলো মেনে চলুন।

বাংলাদেশ রিপোর্ট

সবগুলো লেখা দেখুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

যুক্ত থাকুন

নির্ভরযোগ্য সংবাদের জন্য আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন।

বাংলাদেশ রিপোর্ট পরিবারে যুক্ত থাকুন:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আমরা আছি নানান কনটেন্ট আর পরামর্শ নিয়ে । আমাদের সাথে যুক্ত হতে নিচের আইকনগুলোতে ক্লিক করুন:

বাংলাদেশ রিপোর্ট

পরীক্ষামূলক কার্যক্রম চলছে। যেকোনো পরামর্শ এবং অভিযোগ সাদরে গ্রহণ করা হবে। ধন্যবাদ।