আগস্ট ৭, ২০২০

করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে বিনা চিকিৎসায় মারা গেলেন তিনি

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় মুদি দোকানে কাজ করা এক ব্যক্তি বগুড়ার শিবগঞ্জে নিজ বাড়িতে ফিরে জ্বর ও সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হন। প্রচণ্ড জ্বরে অচেতন হয়ে পড়ায় হাসপাতালে নেওয়ার জন্য তার স্ত্রী প্রতিবেশীদের সাহায্য চান। কিন্তু তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এই আতঙ্কে কেউ তার পরিবারের আকুতিতে সাড়া দেয়নি। বাড়িতে আট বছরের শিশু কন্যা ছাড়া তার সঙ্গে আর কেউ ছিলো না।

গতকাল শুক্রবার রাতে তার অবস্থার অবনতি হলে তার স্ত্রী প্রতিবেশীদের সাহায্য না পেয়ে তিনি অ্যাম্বুলেন্সের জন্য চেষ্টা করেন। এমনকি আইইডিসিআরের হটলাইনগুলোতেও একের পর এক কল করে বিফল হন। রাতভর জেলা ও উপজেলার হাসপাতাল, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশে ফোন দিয়েও কোনো সাড়া পাননি তিনি। পরে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের হটলাইনে ফোন দেন তিনি।

মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের রেসিডেন্ট চিকিৎসাক শফিক আমিন বলেন, ‘হাসপাতালের হটলাইনে ফোন করা নারীর বর্ণনা শুনে মনে হলো, মানবতার কাছে আমরা হেরে গেছি। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হোক বা না হোক, একজন নাগরিক হিসেবে তাঁর চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার আছে। আমরা কেউ তাঁর পাশে দাঁড়াতে পারিনি। আমি নিজেও সকাল থেকে আইইডিসিআরের হটলাইনে যোগাযোগের দীর্ঘ চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি। শেষে সিভিল সার্জন ও পুলিশকে বিষয়টি জানিয়েছি।’

সিভিল সার্জন গউসুল আজিম চৌধুরী বেলা ১১টার দিকে ওই ব্যক্তির বাড়িতে একজন চিকিৎসা কর্মকর্তাকে পাঠান এবং তিনি তাঁর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন। মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহের জন্য আইইডিসিআরকে খবর দেওয়া হয়েছে বলে জানান শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনি জানা, পরীক্ষার ফলাফল না আসা পর্যন্ত ওই ব্যক্তির পরিবার কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। এ ছাড়া আশপাশের ২০ থেকে ২৫টি বাড়ি লকডাউন থাকবে।

বাংলাদেশ রিপোর্ট

সবগুলো লেখা দেখুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

যুক্ত থাকুন

নির্ভরযোগ্য সংবাদের জন্য আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন।

বাংলাদেশ রিপোর্ট পরিবারে যুক্ত থাকুন:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আমরা আছি নানান কনটেন্ট আর পরামর্শ নিয়ে । আমাদের সাথে যুক্ত হতে নিচের আইকনগুলোতে ক্লিক করুন:

বাংলাদেশ রিপোর্ট

পরীক্ষামূলক কার্যক্রম চলছে। যেকোনো পরামর্শ এবং অভিযোগ সাদরে গ্রহণ করা হবে। ধন্যবাদ।